মেহেদি পাতায় চুলের সমস্যার সমাধান!

মেহেদি পাতায় চুলের সমস্যার সমাধান!

দুর্বা ডেস্ক :: চুলের যত্নে মেহেদি পাতার ব্যবহার দীর্ঘদিনের পুরনো। প্রাকৃতিকভাবে সাদা চুল রং করার ক্ষেত্রে মেহেদি পাতার তুলনা নেই। কালো চুলের জন্য কতটা উপকারী মেহেদি পাতা তা কি জানা রয়েছে? এবার তাহলে জেনে নিন কীভাবে চুলের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করবে মেহেদি পাতা।

বিশেষ কিছু উপকারিতা

চুল ঘন হয়, চুলের গোড়া শক্ত করে, রুক্ষতা দূর করে, চুল রেশমি ও ঝরঝরে করে, মাথা ঠান্ডা রাখে, চুলের আগা ফাটা রোধ করে, খুশকি দূর করে, চুলের স্বাস্থ্য ঠিক রাখে এবং সাদা চুল রং করে মেহেদি পাতার পেস্ট।ৎ

খুশকি দূর করে মেহেদি পাতা

মেহেদি পাতা পরিমাণমতো বিষয়ে নিয়মিত প্রতি সপ্তাহে ১ বার ব্যবহারে মাথার ত্বক থেকে খুশকি দূর করবে। খুশকি দূর করার জন্য মেহেদি পাতার সাথে ৩-৪ টি আমলকি পিষে মাথার ত্বকে লাগিয়ে ৩০ মিনিট রেখে দিলে খুশকি দূর হবে এবং চুল মজবুত হবে।

রুক্ষ চুলে প্রাণ ফেরায়

মেহেদি পাতার সাথে ১ টি ডিমের সাদা অংশ ও টকদই ২-৩ চামচ মিশিয়ে ব্যবহারে চুলের পুষ্টি সংযোজন হবে ও চুলের রুক্ষতা দূর করে চুল উজ্জ্বল ও রেশমি হবে।

চুল পড়া রোধে মেহেদি পাতা

সপ্তাহে ১ বার মেহেদি পাতা পিষে অথবা ব্লেন্ড করে সঙ্গে ১-২ চামচ অলিভ অয়েল মিশিয়ে মাথায় ব্যবহার করুন। এটি চুলে লাগিয়ে ৩০-৫০ মিনিট রেখে শ্যাম্পু ব্যবহার না করে শুধু পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

একদিন পর শ্যাম্পু করলে চুল পড়া কমবে ও সতেজ হবে এবং মাথা ঠান্ডা রাখবে। এছাড়াও নারকেল তেল বা সরিষার তেল অথবা অন্য কোনও তেলের সাথে আধা চামচ মেথি মিশিয়ে গরম করে এরপর ঠাণ্ডা করে মেহেদি পাতার সাথে মিশিয়ে সপ্তাহে ১-২ বার মাথায়ও চামড়ায় লাগালে চুল রেশমি হয় ও চুল পড়া কমে।

কিছু পরামর্শ

মেহেদী দেওয়ার আগের দিন চুলে তেল দেওয়া ভালো। চুলে বাজারের কোন কেমিক্যালের রং ব্যবহার করে থাকলে তবে কম করে হলেও ২/৩ মাস পর মেহেদি পাতা ব্যবহার করা উচিত, না হলে চুলের ক্ষতি হতে পারে।

মেহেদি পাতা লাগিয়ে বেশি সময় রাখা ভালো, কম করে হলেও ৪০-৫০ মিনিট রাখলে খুবই ভালো কাজ করবে। এর চেয়ে বেশি সময় রাখলে চুল বেশি শুষ্ক ও রুক্ষ হয়ে যাবে।

মেহেদি পাতা চুলে লাগানোর সময় কান, ঘাড় ও গলায় কাপড় দিয়ে ঢেকে নিলে রং লাগবে না। হাতের গ্লাভস লাগিয়ে নেওয়া যায় যাতে হাতেও রং না লাগে। এছাড়াও গ্লিসারিন লাগিয়ে নেয়া যায় এতে রং কম হবে এমন কি উঠে যাবে সহজে।


আরো পড়ুন: এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার সময় জানালেন শিক্ষামন্ত্রী


একেকজনের চুলের ত্বক একেক রকমের হয়, এলার্জি থাকলে বা মাথার চামড়ায় কোন খাবার ইনফেকশন থাকলে ব্যবহার না করাই ভালো।

চুলে নিয়মিত তেল দেয়া ভালো, তবে সব সময় মালিশ করে তেল দিলে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধির সাথে চুল ঘন হয়।

যুক্ত হোন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে এখানে ক্লিক করুন।

এগুলো দেখুন

রোজায় ডায়াবেটিস রোগীর পুষ্টি

রোজায় ডায়াবেটিস রোগীর পুষ্টি

জেনে নিন এই রোজায় ডায়াবেটিস রোগীর পুষ্টি খাবারগুলো কি কি হবে? আসুন এ বিষয়ে আজকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.