রমজানে ও গরমে ত্বকের যত্ন

জেনে নিন রমজানে ও গরমে ত্বকের যত্ন কিভাবে নিবেন? আসুন এ বিষয়ে আলোচনা করে আজকে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক। পানিশূন্যতা ত্বকে অনেক বড় প্রভাব ফেলে। তাই রোজাদারদের এ শূন্যতা পূরণে সন্ধ্যার পরের সময় যথাযথভাবে কাজে লাগাতে হবে। সাহ্‌রি ও ইফতারে অন্যান্য খাবারের সঙ্গে পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি খেতে হবে। পাশাপাশি জলীয় অংশ প্রচুর আছে এমন ফলমূল, ফলের রস, ডাব খাওয়া যায়।

ভাজাপোড়া থেকে বিরত থাকলে ভালো। কারণ, এতে শরীর আরও বেশি পানিশূন্য হয়। তৈলাক্ত খাবার না খেয়ে বরং ত্বক সতেজ রাখতে সিদ্ধ খাবার, ভিটামিন ‘এ’ ‘ই’ যুক্ত খাবার যেমন গাজর, টমেটো, ব্রকলি খাওয়া যেতে পারে।



প্রচণ্ড গরমে শরীরে কিছু সমস্যা হতে পারে। অতিরিক্ত ঘামে ঘামাচি, সামার বয়েল বা ফোড়ার মতো বিভিন্ন চর্মরোগ হতে পারে। এ ক্ষেত্রে বিভিন্ন পাউডার ব্যবহার করা হয়। শরীর শুষ্ক রাখতে ওলেন্টিয়ন কম্পোজিশন, কিউটি কুরা নামে বিভিন্ন পাউডার ব্যবহার করা যায়।

গরমকালে সব সময় সুতি জামাকাপড় পরা উচিত। এ সময় খুব প্রয়োজন ছাড়া ত্বকের পোর বা ছিদ্রগুলোকে ব্লক করার দরকার নেই। তাই বেশি প্রসাধনী ব্যবহার না করা ভালো। যতটুকু না হলেই নয়, ততটুকু করা যেতে পারে। অতিরিক্ত মেকআপে মুখে ব্রণসহ বিভিন্ন সমস্যা আরও বাড়ে। এ সময় নারীরা সবচেয়ে বেশি ভোগেন মেছতা সমস্যায়।

গরমে এর প্রভাব আরও বেশি হয়। অনেকে এটি প্রতিকারে বিভিন্ন ক্রিম ব্যবহার করেন। কিন্তু এ ধরনের ক্রিম ব্যবহারে সাময়িকভাবে সুন্দর লাগলেও, এটি আসলে ক্ষতিকর। মেছতা থাকুক বা না থাকুক, ত্বকের যত্নে অবশ্যই সান ব্লক ব্যবহার করা উচিত। এ ক্ষেত্রে ফিজিক্যাল ও কেমিক্যাল সান ব্লক ব্যবহার করা যেতে পারে।

তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক রমজানে ও গরমে ত্বকের যত্ন কিভাবে নিবেন?

রোজায় ত্বকের যত্নে টিপস

১. গরমে ও রমজানে নিয়মিত ত্বক পরিষ্কার রাখতে ১ টেবিল চামচ পাকা পেঁপে ভালোভাবে চটকে এক টেবিল চামচ পাতিলেবুর রস ও প্রয়োজনীয় চালের গুঁড়া মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি মুখসহ পুরো গলায় ২০ থেকে ২৫ মিনিট ম্যাসাজ করে ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে ফেলুন।

২. পানিশূন্য ত্বকে নিয়মিত কাঠবাদামবাটা, ঠান্ডা দুধ ও গোলাপ জল দিয়ে তৈরি ফেসপ্যাক ব্যবহার করুন। এটি শুষ্ক পানিশূন্য ত্বকের জন্য খুবই উপকারী।

৩. যাঁদের ত্বক বেশি শুষ্ক, তাঁরা টমেটো, কলা, শসা একসঙ্গে মিলিয়ে প্যাক তৈরি করে ইফতারের ঘণ্টাখানেক পর লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে ত্বকের শুষ্কতা দূর হবে।



৪. ত্বক শুষ্ক হলে নিয়মিত ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম বা লোশন ব্যবহার করতে পারেন। এতে শুষ্কতা রোধের পাশাপাশি ত্বক সজীব হবে। তবে এ ক্ষেত্রে ত্বকের চিকিৎসকের পরামর্শ নেবেন।

৫. পানিশূন্যতায় অনেকের ঠোঁট ফাটে। তাঁরা রাতে ঘুমানোর আগে ঠোঁটে ভালো করে ভ্যাসলিন বা পেট্রোলিয়াম জেলি লাগাবেন।

৬. দিনে ৪ থেকে ৫ বার মুখ ধুয়ে ফেলুন। মনে রাখবেন, পর্যাপ্ত ঘুম অবশ্যই দরকার।

যুক্ত হোন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে এখানে ক্লিক করুন এবং আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন ফেইজবুক পেইজে এখানে ক্লিক করে।

এগুলো দেখুন

ইফতারে তিন পানীয় প্রাণ জুড়াবে

ইফতারে তিন পানীয় প্রাণ জুড়াবে

ইফতারে তিন পানীয় প্রাণ জুড়াবে । জেনে নিন কিভাবে তৈরি করবেন এই তিন পানীয়। ইফতারে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.