সময় হলেই আন্দোলনের ডাক দেবে বিএনপি: ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার :: সময় হলে বিএনপি আন্দোলনের ডাক দেবে বলে নেতা-কর্মীদেরকে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আজ (সোমবার ৭ জুন) জাতীয় প্রেসক্লাবে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৪০তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব) আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

আন্দোলন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আপনাদের অনেকে বলেন, বিএনপি ডাক (আন্দোলনের) দিচ্ছে না কেনো? বিএনপি তখনই ডাক দেবে যখন বিএনপি মনে করবে যে, ডাক দেওয়ার সময় হয়েছে। ডাক তো অতীতেও দিয়েছে। বিগত ২০১৪ সালের নির্বাচনের পরে আমরা প্রায় ৬ মাস অপ্রতিরোধ্য আন্দোলন গড়ে তুলিনি? একেবারে গ্রামে-গঞ্জে হাট বাজার পর্যন্ত বন্ধ হয়ে যায়নি। বিগত ২০১৬ সালে খালেদা জিয়া অবরুদ্ধ হলেন, আমরা সবাই কারাগারে চলে গেছি। তখন গোটা বাংলাদেশ অবরোধ ছিলো না? তারপরেও কিন্তু হয়নি।

মির্জা ফখরুল বলেন, অতীতের মতো আজকেও ছাত্রদেরকে, এই শ্রমিক শ্রেণিকেই আন্দোলনে বড় ভূমিকা পালন করতে হবে। আপনারা যেটা চাচ্ছেন মুহুর্তের মধ্যে, যেটা আমরা সবাই চাচ্ছি যে, রাজপথে আন্দোলনের মধ্য দিয়ে অভ্যুত্থান হবে। অভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে এই সরকার পরাজিত হবে।

‘গণঅভ্যুত্থান তৈরি করতে হবে তো? কারা তৈরি করবে? হু উইল ক্রিয়েটিভ। ইট ইজ দ্য ইয়াং জেনারেশন। তারাই পারবে। যেকোনো কেনো পরিবর্তনে তাদেরকেই সামনে আসতে হবে। জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে যদি আমরা আন্দোলন গড়ে তুলতে পারি তাহলে অবশ্যই আমরা সফল হবো।’

আন্দোলনে প্রসঙ্গ টেনে ফখরুল আরো বলেন, আমাদের অনেক বয়স হয়ে গেছে। আমার বয়স ৭২ পার হয়ে গেছে। তারপরেও তো আমি রাস্তায় এসে দাঁড়াই। যেদিন জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে রাজকে (ছাত্র নেতা) আমার বুক থেকে যখন ছিনিয়ে নিয়ে যাচ্ছে সেদিন কজন আপনারা ঘুরে এসে দাঁড়িয়েছিলেন বলেন তো? এগুলো আমাদের উপলব্ধি করতে হবে।

বিএনপি নেতা বলেন, আমরা তো সবসময় আশা করি যে, আমাদেরকে শক্তি যোগাবে তরুণরা। আপনারা (আমান উল্লাহ আমান) যখন যুবক ছিলেন আপনারা পরিবর্তন নিয়ে এসেছিলেন, নব্বইয়ে এরশাদকে আপনারা হটিয়ে দিয়েছিলেন। আমরা যখন যুবক ছিলাম আমরা পাকিস্তানকে হটিয়ে দিয়েছি। আজকেও এই যুবকদেরকে এগিয়ে আসতে হবে। তাদেরকে সংগঠিত হতে হবে, তাদেরকে তৈরি করতে হবে। সেই কাজ শুরু করুন, তাহলে দেখবেন সেই কাজটা (আন্দোলন) সহজ হয়ে যাবে।

নব্বইয়ের পৃথিবী আর আজকে দুই হাজার একুশের পৃথিবী এক নয় মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, লট অব চেইঞ্জেস হ্যাজ টেকেন প্লেস। যুগ ও সময় সব কিছু পরিবর্তন হয়ে গেছে।


আরো পড়ুন: স্মার্টফোন দিয়েই চোখের পরীক্ষা করা যাবে
আরো পড়ুন: ৫ মিনিটে নিজেই খুলুন e-TIN সার্টিফিকেট


পরিবর্তনের ধারাকে নিয়ে আমাদের এগুতে হবে। তা না হলে আমরা কখনো সাকসেসফুল হতে পারবো না। অতীতে ছাত্র এবং শ্রমিকরা যেকেনো আন্দোলনে সব চেয়ে সামনে ভূমিকা পালন করতো, ভ্যানগার্ড। এখন কোথায় তারা, কোথায় যুবকেরা? এখন তারা অপেক্ষা করে থাকে বিএনপি কখন মিটিং করবে।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি হারুন আল রশিদের সভাপতিত্বে সভায় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, সহ-প্রচার সম্পাদক শামীমুর রহমান শামীম, ড্যাবের মহাসচিব আব্দুস সালাম প্রমুখ বক্তব্যে রাখেন।

 

যুক্ত হোন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে এখানে ক্লিক করুন।

এগুলো দেখুন

জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে চাকরি

ধীরে ধীরে খুলছে সরকারি চাকরির নিয়োগজট

স্টাফ রিপোর্টার :: করোনা নিয়ন্ত্রণে আসায় ধীরে খুলছে বিভিন্ন স্তরের সরকারি চাকরির নিয়োগজট। আগে থেকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.