সরকারের সাথে ডিসি অফিসের আজাদের বৈইমানী!

সরকারের সাথে ডিসি অফিসের আজাদের বৈইমানী! … এম. লোকমান হোসাঈন ॥ থাকার জন্য ঘর চেয়ে এবার জমিও দখলে নিলেন বিতর্কিত উচ্চমান সহকারী আবুল কালাম আজাদ। সরকারী ঘর দখলের পাশাপাশী অবশিষ্ট জমির ওপরে দোকান ঘর নির্মান করে ভাড়া দিয়েছেন। আরো নতুন ঘর নির্মাণ করে যাচ্ছে আবুল কালাম আজাদ।

অদৃশ্য ক্ষমতার আড়ালে বছরের পর বরিশাল জেলা প্রশাসকের এ শাখা থেকে অন্য শাখায় বদলী হয়ে নানা দুর্নীতি করে যাচ্ছে আজাদ। তবুও ধরাছোয়ার বাইরেই থেকে যাচ্ছেন তিনি। এবার আজাদের নজর সরকারী সম্পত্তি দখলের দিকে। ২০০৭ সালে বসবাসের জন্য যে সম্পদ সরকারের কাছ থেকে লীজ নিয়ে র্দীঘদিন বসবাস করে আসছেন, তিনিই নাকি আবার সেই সম্পত্তি অবৈধ ভাবে দখল করে নেন।



প্রায় একযুগ বসবাসের পর সরকার উক্ত সম্পত্তিতে ভূমি অফিসের স্টাফদের জন্য কোয়ার্টার নির্মাণ করার উদ্যোগ গ্রহণ করে, ঠিক সেই সময়ে বাধা প্রদান করেন আবুল কালাম আজাদ।

এ যেনো সরকারের খেয়ে সরকারের সাথে বৈইমানী। ২০০৭ সালের ৩ অক্টোবর কোর্ট অব ওয়ার্ডস এর কাছ থেকে বাৎসরিক লিজ নেন বরিশাল জেলা প্রশাসক কার্যলয়ের উচ্চমান সহকারী মু: আবুল কালাম আজাদ। ২০১৭ সালের ৭ মে ওইসময়ের বরিশাল জেলা প্রশাসক ড. গাজী মো: সাইফুজ্জামান একটি সুপারিশপত্র প্রেরণ করেন ভূমি সংস্কার বোর্ড কোর্ট অব ওয়ার্ডস ঢাকা নওয়াব এষ্টেট এর চেয়ারম্যান বরাবর।

সুপারিশ পত্রে উল্লেখ করা হয়েছে, কোর্ট অব ওয়ার্ডস ঢাকা নওয়াব এষ্টেটের মালিকানাধীন বরিশাল বগুড়া আলেকান্দা মৌজার ৫০ নং জে এল এর ৩৯৬৮ ও ৪৪৫৮ আর এস খতিয়ান ও ১নং এস এ খতিয়ানের দাগ নং ৩৯৫০ এবং ডি পি খতিয়ান নং ২, দাগ নং ৫৩০৫ থেকে প্রায় ৪ শতাংশ জমি বসাবাসের জন্য একসনা লীজ নেয়ার আবেদন করেন। আবেদনের দুই মাসের মাথায় সংশ্লিষ্ট বোর্ডের চেয়ারম্যানের মৌখিক নির্দেশে উক্ত সম্পত্তি পাশাপাশী প্রায় ৮ শতংশ জমি বিএম ভূমি অফিস ও ভূমি অফিসের স্টাফদের জন্য কোয়ার্টার নির্মাণের নির্দেশ প্রদান করেন।

যার প্রেক্ষিত্রে ওই বছরের ২৩ জুলাই সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরিশাল সদর বরাবর প্রতিবেদন জমা দেন বি এম ভূমি অফিসের ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মো: হাফিজুর রহমান। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, ২২ জুলাই ভূমি সংস্কার বোর্ডের মৌখিক নির্দেশ মোতাবেক ৫০নং জে এল আলেকান্দা মৌজার এস এ ১নং খতিয়ানভূক্ত এস এ ৩৯৫০ নং দাগ, যার বর্তমান দাগ বি এস ৫৩০৫ নং দাগের প্রায় ৮ শতাংশ ভূমির মধ্যে বি এম ভূমি অফিস ও অফিসের কোয়ার্টার অবস্থিত। বর্তমানে বি এস জরিপে বি এম ভূমি অফিসের নামে রেকর্ড সংশোধন একান্ত প্রয়োজন। যার স্বারক নং- ৬৯ (বি এম)।



ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তাগণের র্দীঘদিনের আবাসিক সমস্যা নিরসণের জন্য ভূমি সংস্কার বোর্ডের নির্দেশ মোতাবেক দখলকারী আবুল কালাম আজাদ কর্র্তৃক দখলীয় সম্পত্তিতে আবাসিক ভবন নির্মানের জন্য ২০২০ সালে জমি বরাদ্দর প্রস্তাব দেন ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা দেশপ্রিয় চক্রবর্তী।

জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দাবী করা হচ্ছে বৈআইনী ভাবে কেউ বেশীদিন দখল করে থাকতে পারবে না। আর সরকারের নির্দেশ অমান্য করে কেউ পার পাবেন না। দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেন, প্রশাসনের পক্ষ থেকে। অভিযুক্ত আবুল কালাম আজাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

যুক্ত হোন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে এখানে ক্লিক করুন এবং আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন ফেইজবুক পেইজে এখানে ক্লিক করে।

এগুলো দেখুন

পায়রা সমুদ্র বন্দরের চলছে উন্নয়নের মহাযজ্ঞ

পায়রা সমুদ্র বন্দরের চলছে উন্নয়নের মহাযজ্ঞ সম্পর্কে আজকের আলোচনা করা হয়েছে। বিস্তারিত আলোচনা করছেন, বিশেষ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *