SSC ব্যবসায় উদ্যোগ সৃজনশীল প্রশ্নসহ উত্তর (ফ্রি PDF)

SSC ব্যবসায় উদ্যোগ সৃজনশীল প্রশ্নসহ উত্তর (ফ্রি PDF)

ব্যবসায় উদ্যোগ সৃজনশীল প্রশ্ন

আজিম সবচেয়ে প্রাচীন ও জনপ্রিয় ব্যবসায় সংগঠন পরিচালনা করেন। মাঝে মধ্যেই তাকে আর্থিক সংকটে পড়তে হয়।

পরবর্তীতে আজিম তার সুনাম ব্যবহার করে দুই বন্ধুর সাথে অন্য একটি ব্যবসায় চুক্তির ভিত্তিতে যুক্ত হলেন। তিনি দেখলেন এ ব্যবসায় ঝুঁকি কম, দায়িত্ব বণ্টন ইত্যাদি সুবিধা রয়েছে।

ক. অংশীদার কয় ধরনের?
খ. প্রাইভেট লি. কোম্পানি বলতে কী বোঝায়?

গ. আজিম কোন ধরনের অংশীদার? বর্ণনা কর।
ঘ. আজিমের বর্তমান ও পূর্বের ব্যবসায়িক অবস্থার তুলনামূলক বিশ্লেষণ কর।

ব্যবসায় উদ্যোগ সৃজনশীল প্রশ্নর উত্তর
ক. অংশীদার প্রধানত ছয় ধরনের।

খ. যে কোম্পানির সদস্য সংখ্যা সর্বনিম্ন দুজন এবং সর্বোচ্চ ৫০ জনে সীমাবদ্ধ এবং যার শেয়ার অবাধে হস্তান্তরযোগ্য নয় তাকে প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি বলে। প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানিতে উদ্যোক্তারাই মালিক হিসেবে পরিচিত হন। এখানে নতুন মালিক গ্রহণের সুযোগ নেই।

গ. আজিম একজন নামমাত্র অংশীদার। একটি অংশীদারি ব্যবসায়ে সাধারণত ছয় ধরনের অংশীদার লক্ষ করা যায়। এ ধরনের অংশীদারদের মধ্যে অন্যতম হলো নামমাত্র অংশীদার। যে অংশীদার ব্যবসায়ে মূলধন বিনিয়োগ করেন না এবং ব্যবসায় পরিচালনায়ও অংশগ্রহণ করেন না কিন্তু সুনাম ব্যবহার করতে দেয়ার বিনিময়ে ঐ ব্যবসায় থেকে মুনাফা গ্রহণ করেন তাকে নামমাত্র অংশীদার বলে।

উদ্দীপকে আজিম তার দুই বন্ধুকে নিয়ে যে অংশীদারি ব্যবসায় গঠন করেছেন সেখানে তিনি মূলধন বিনিয়োগ করেননি। তিনি সুনাম ব্যবহার করে উক্ত ব্যবসায় থেকে মুনাফা পাবেন। তাছাড়াও তিনি ব্যবসায় পরিচালনায় অংশগ্রহণ করবেন না এবং তার দায় অসীম নয়।

তবে কোনো তৃতীয় পক্ষ যদি তাকে অংশীদার মনে করে ঋণ দেয় এবং তা প্রমাণ করতে পারে তাহলে সেই ঋণের জন্য তিনি সাধারণ অংশীদারের ন্যায় দায়বদ্ধ। তাই অংশীদারদের বৈশিষ্ট্য বিবেচনায় আজিম নিঃসন্দেহে একজন নামমাত্র অংশীদার।

ঘ. আজিম বর্তমানে অংশীদারি ব্যবসায়ে যুক্ত আছেন এবং পূর্বে তিনি একমালিকানা ব্যবসায়ে যুক্ত ছিলেন।
ব্যবসায় জগতে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ব্যবসায় সংগঠনের আবির্ভাব ঘটেছে। এদের মধ্যে প্রথমে একমালিকানা এবং পরবর্তীতে অংশীদারি ব্যবসায়ের উদ্ভব ঘটে।

উদ্দীপকের আজিম পূর্বের একমালিকানা ব্যবসায়টিতে একক মালিক ছিলেন তাই ব্যবসায়ের সকল সিদ্ধান্ত যেমন তিনি একা নিতেন তেমনি লাভ-লোকসানও একই ভোগ করতেন। কিন্তু অংশীদারি ব্যবসায়ে সকল অংশীদাররা সম্মিলিতভাবে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন এবং লাভ-লোকসানও নিজেদের মধ্যে চুক্তি অনুযায়ী বণ্টন করে নেন।

তাছাড়া তার প্রথম ব্যবসায়টি অপেক্ষা দ্বিতীয় ব্যবসায়টির গঠন কিছুটা কঠিন। বর্তমান ব্যবসায়ে অধিক মূলধন সংস্থানের সুযোগ থাকলেও পূর্বের ব্যবসায়ে ছিল না। পূর্বের ব্যবসায়ে গোপনীয়তা রক্ষা করা গেলেও বর্তমান ব্যবসায়ে তা রক্ষা করা খুবই কঠিন।

বর্তমান ব্যবসায়ের জন্য ১৯৩২ সালের আইন থাকলেও পূর্বের ব্যবসায়ে কোনো আইন ছিল না। অর্থাৎ আজিমের পূর্বের ব্যবসায়ে একক মুনাফা ভোগ ও সিদ্ধান্ত গ্রহণের পর্যাপ্ত সুযোগ থাকা সত্ত্বেও মালিকের পরিচালন ক্ষমতা ও মূলধন সরবরাহে

সীমাবদ্ধতা, অসীম দায় ইত্যাদি অসুবিধা ছিল। কিন্তু এখন তিনি ব্যবসায় সম্প্রসারণ করার পাশাপাশি ঝুঁকি ও দায়িত্ব বণ্টন করার সুযোগ পাচ্ছেন। সুতরাং বলা যায়, তার বর্তমান ব্যবসায়িক অবস্থা পূর্বের তুলনায় অধিক সুবিধাজনক।

ব্যবসায় উদ্যোগ সৃজনশীল প্রশ্ন
পরশ, পিয়াল ও পাপ্পু তিনজন বন্ধু মিলে একত্রে তৈরি পোশাক কেনা-বেচার জন্য সমঝোতার ভিত্তিতে একটি প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছে।

কিছু তৈরি পোশাক কিনে কিছু দিন পর বিক্রয় করে। আবার কিছু তৈরি পোশাক কিনে ৪ বা ৫ দিনের মধ্যেই বিক্রয় করে দেয়। কোন পোশাক কখন বিক্রয় করবে এ নিয়ে প্রায়ই ঝগড়া হয়। তাই তারা যার যার মতো ব্যবসায় করার সিদ্ধান্ত নিল। এখন অন্যকে আর জিজ্ঞাসা করার প্রয়োজন পড়ে না। যার যার দায় এখন তার তার।

ক. সমবায় সংগঠনে ন্যূনতম কতজন সদস্য দরকার?
খ. অংশীদারি ব্যবসায়ের আবির্ভাব ঘটে কেন?

গ. তিন বন্ধু প্রথমে কোন ধরনের ব্যবসায় গঠন করেছিল? ব্যাখ্যা কর।
ঘ. তিন বন্ধু পরে কোন ধরনের ব্যবসায় করার সিদ্ধান্ত নিল? তাদের সিদ্ধান্তের যৌক্তিকতা তুলে ধর।

ব্যবসায় উদ্যোগ সৃজনশীল প্রশ্নর উত্তর
ক. সমবায় সংগঠনে ন্যূনতম ২০ জন সদস্য দরকার।
খ. একমালিকানা ব্যবসায়ের অসুবিধাগুলো দূর করার প্রয়োজনেই অংশীদারি ব্যবসায়ের আবির্ভাব ঘটে।

ব্যবসায় জগতে একমালিকানা ব্যবসায়ে প্রাচীন ও জনপ্রিয় হলেও একক মালিকের মূলধনের স্বল্পতা, অসীম দায়, ব্যবসায়ের ক্ষুদ্র আওতা ইত্যাদি সীমাবদ্ধতা কাটিয়ে উঠতে ব্যবসায় জগতে অংশীদারি ব্যবসায়ের প্রয়োজন দেখা দেয়। তার পরিপ্রেক্ষিতে অংশীদারি ব্যবসায়ের উদ্ভব হয়।

গ. পরশ, পিয়াল ও পাপ্পু তিন বন্ধু প্রথমে অংশীদারি ব্যবসায় গঠন করেছিল।
মুনাফা অর্জনের উদ্দেশ্যে দুই বা ততোধিক ব্যক্তি স্বেচ্ছায় মিলিত হয়ে অংশীদারি চুক্তির ভিত্তিতে যে ব্যবসায় গঠন করে তাকে অংশীদারি ব্যবসায় বলে। উদ্দীপকে তিন বন্ধু তৈরি পোশাক কেনা-বেচার জন্য প্রথমে অংশীদারি ব্যবসায় গড়ে তোলে। এ ব্যবসায়ে সদস্য সংখ্যা হলো সর্বনিম্ন ২ জন এবং সর্বোচ্চ ২০ জন।

এ ব্যবসায়ের মূলধনের পরিমাণ একমালিকানা ব্যবসায়ের তুলনায় অনেক বেশি থাকে। কারণ এখানে প্রত্যেক অংশীদার সম্মিলিতভাবে তাদের নিজ নিজ পুঁজি ব্যবসায়ে বিনিয়োগ করে।

ব্যবসায়ের সার্বিক সাফল্য অংশীদারদের মধ্যে পারস্পরিক সমঝোতার ওপর নির্ভর করে। উদ্দীপকের ব্যবসায়টির সদস্য সংখ্যা তিন জন এবং পারস্পরিক সমঝোতার ভিত্তিতে ব্যবসায়টি গঠন করা হয়েছে। অংশীদারগণ যে কোনো বিষয়ে সম্মিলিতভাবে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। তাই তিন বন্ধুর প্রথম ব্যবসায়টি অংশীদারি ব্যবসায়।

ঘ. পরশ, পিয়াল ও পাপ্পু তিন বন্ধু সিদ্ধান্ত সংক্রান্ত ঝামেলা থেকে রেহাই পাওয়ার জন্য প্রত্যেক আলাদা হয়ে একমালিকানা ব্যবসায় গঠন করে। অংশীদারি ব্যবসায়ে সদস্যদের মধ্যে প্রায়ই বিভিন্ন বিষেয়ে মত পার্থক্য দেখা দেয়। ফলে এক সময় সমঝোতা ও বিশ্বাসের অভাবে সংগঠনের অবসান হয়। অর্থাৎ সমমনা লোকের অভাবে প্রতিষ্ঠান ভেঙ্গে যায়।

উদ্দীপকের তিন বন্ধুর প্রথম ব্যবসায়টিতে যেকোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণের সময় সবার সম্মতির প্রয়োজন হতো। কিন্তু যথাসময়ে সকল সদস্যদের সিদ্ধান্ত পাওয়া যেত না। ফলে তাদের মধ্যে মত পার্থক্য দেখা দেয়। তাদের পারস্পরিক অবিশ্বাস ও সমঝোতার অভাবে ব্যবসায় ধ্বংস হয়ে যায়।

এরূপ ঝামেলা এড়ানোর এজন্যই তারা প্রত্যেকে আলাদা হয়ে একমালিকানা ব্যবসায় গঠন করে।এ ব্যবসায়ে মালিক ব্যবসায়ের সার্বিক ক্ষমতার অধিকারী। তিনি যেকোনো বিষয়ে যেকোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। এজন্য তাকে কারও সাথে আলোচনা করতে হয় না।

এ ব্যবসায়ের সমস্ত লাভ মালিক একাই ভোগ করে এবং সাথে সাথে ব্যবসায়ের অসীম দায় তাকে নিতে হয়। তিন বন্ধু প্রত্যেকে নিজ নিজ ব্যবসায় করার ফলে অংশীদারি ব্যবসায়ে সৃষ্ট সমস্যা দূর হয়ে যায়। সুতরাং বলা যায়, পারস্পরিক ঝামেলা এড়ানোর জন্য তিন বন্ধুর একমালিকানা ব্যবসায় গঠন করার সিদ্ধান্ত যৌক্তিক হয়েছে।

ব্যবসায় উদ্যোগ সৃজনশীল প্রশ্ন
মিসেস শাহানারা একটি বুটিক হাউজ প্রতিষ্ঠানের মালিক। তার এক বান্ধবীর সহযোগিতায় ৫ জন শ্রমিক নিয়ে ছোট্ট প্রতিষ্ঠান গড়ে তিনি ব্যবসায় শুরু করেছিলেন। এখন পাঁচটি কারখানায় একশত জন শ্রমিক কাজ করে। কখনও তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে বা অনুপস্থিত থাকলে সমস্যার শেষ থাকে না। তাই তিনি তার ছোট বোনকে সমঝোতার ভিত্তিতে ব্যবসায়ে নিয়ে এসেছেন।

ক. রাষ্ট্রীয় ব্যবসায় কার অধ্যাদেশে গড়ে ওঠে?
খ. অসীম দায়ের পরোক্ষ সুবিধা বলতে কী বোঝায়?

গ. মিসেস শাহানারা প্রথমে কোন ধরনের ব্যবসায় গঠন করেছিলেন? ব্যাখ্যা কর।
ঘ. কোন ধরনের অসুবিধার কারণে মিসেস শাহানারা ছোট বোনকে অংশীদার হিসেবে গ্রহণ করেছেন? তার সিদ্ধান্তের যৌক্তিকতা মূল্যায়ন কর।

ব্যবসায় উদ্যোগ সৃজনশীল প্রশ্নর উত্তর
ক. রাষ্ট্রীয় ব্যবসায় রাষ্ট্রপতির অধ্যাদেশে গড়ে ওঠে।
খ. অংশীদারি ব্যবসায়ে অংশীদারের দায় অসীম হওয়ার কারণে প্রত্যেক অংশীদার অত্যন্ত সতর্কতার সাথে ব্যবসায় পরিচালনা করার চেষ্টা করে।

এর ফলে ব্যবসায়ে জরুরি মূলধনের প্রয়োজনে সহজেই তৃতীয় পক্ষ হতে ঋণ সংগ্রহ করা যায়। অসীম দায়ের ফলে প্রত্যেক অংশীদার ব্যবসায়ের সম্পদের যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করার প্রচেষ্টা চালায়।

গ. মিসেস শাহানারা প্রথমে একমালিকানা ব্যবসায় গঠন করেছিলেন। সাধারণভাবে একজন ব্যক্তির মালিকানায় প্রতিষ্ঠিত, পরিচালিত ও নিয়ন্ত্রিত ব্যবসায়কে একমালিকানা ব্যবসায় বলে। যেকোনো ব্যক্তি নিজের উদ্যোগে স্বল্প অর্থ নিয়ে এ ধরনের কারবার শুরু করতে পারেন।

উদ্দীপকে প্রথমে মিসেস শাহানারার প্রতিষ্ঠানটি ছিল একমালিকানা প্রতিষ্ঠান। কারণ এ প্রতিষ্ঠানের মালিক একমাত্র শাহানারা। তিনিই ব্যবসায়টি নিয়ন্ত্রণ ও তত্ত্বাবধান করেন। প্রতিষ্ঠানের লাভ-লোকসান একাই ভোগ করেন এবং নিজে অসুস্থ হয়ে পড়লে পরিচালনাগত সমস্যায় পড়েন।

এ ব্যবসায়ে সার্বিক সাফল্য নির্ভর করে শাহানারার ব্যবস্থাপনা দক্ষতার ওপর। অর্থাৎ মিসেস শাহানারা প্রথম যে বুটিক হউজ গড়ে তোলেন তা এমকালিকানা ব্যবসায়ের বৈশিষ্ট্যের অনুরূপ। তাই বলা যায়, প্রতিষ্ঠানটি একমালিকানা ব্যবসায়ের অন্তর্ভুক্ত।

ঘ. ব্যক্তিগত প্রতিবন্ধকতার কারণে মিসেস শাহানারা ছোট বোনকে অংশীদার হিসেবে গ্রহণ করেছেন। একমালিকানা ব্যবসায় পৃথিবীর সর্বাধিক জনপ্রিয় ব্যবসায় হওয়ার পরও এর এমন কিছু সমস্যা রয়েছে, যা এর অগ্রগতি থামিয়ে দেয়। এসব সমস্যার হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য অংশীদারি ব্যবসায়ের উদ্ভব হয়।

উদ্দীপকে মিসেস শাহানারা তার একমালিকানা ব্যবসায় পরিচালনার ক্ষেত্রে যে সকল সমস্যার মুখোমুখি হয়েছিলেন তার মধ্যে প্রধান ছিল তার সামর্থ্যরে সীমাবদ্ধতা। শাহানারা অসুস্থ হয়ে পড়লে ব্যবসায় পরিচালনায় সমস্যা হয়। কেননা মালিক তার ব্যবসায়ে যতটা দায়িত্বের সাথে কাজ করে নিয়োগকৃত কর্মীরা সেভাবে কাজ করে না।

তাই মিসেস শাহানারা তার ছোট বোনকে ব্যবসায়ের অংশীদার করেন এতে তার ব্যবসায়ের কার্যক্রমে গতিশীলতা ফিরে আসে। কারণ তিনি অসুস্থ থাকলেও তার অংশীদারি ব্যবসায়ের সার্বিক কার্যক্রম তার বোনের তত্ত্বাবধানে সঠিকভাবে চলতে থাকে। যেকোনো বিষয়ে তারা এখন যৌথ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারেন।

ফলে ব্যবসায়ে ক্ষতির সম্ভাবনা আগের তুলনায় এখন অনেক কম। সুতরাং বলা যায়, সমঝোতার ভিত্তিতে মিসেস শাহানারার তার বোনকে অংশীদার হিসেবে গ্রহণ করা যৌক্তিক হয়েছে।

ব্যবসায় উদ্যোগ সৃজনশীল প্রশ্ন
এমবিএ পড়–য়া ১০ বন্ধু মিলে সমঝোতার ভিত্তিতে স্টুডেন্টস ভিসা সার্ভিস নামে একটি প্রতিষ্ঠান গঠন করে। তারা শিক্ষার্থীদের বিদেশ পড়তে যেতে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা দেয়।

এ কাজে তারা যথেষ্ট দক্ষতা ও সুখ্যাতি অর্জন করায় ব্যবসায় উত্তরোত্তর ভালো করছে। কিন্তু এখানে নানান বিষয়ে তাদের মধ্যে সমস্যা হচ্ছে। তাই তারা মনে করছে শুধুমাত্র কথার ওপরে না চলে আইনগত কিছু করে নিলে ভালো হবে।

ক. অংশীদারি আইন কী?
খ. বৃহদায়তন ব্যবসায় বলতে কী বোঝায়?

গ. উদ্দীপকের বন্ধুরা মিলে যে ব্যবসায় গড়ে তুলেছে তা কোন ধরনের ব্যাখ্যা কর?
ঘ. উদ্দীপকের বন্ধুরা আইনগত কিছু করবে বলে যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তার যৌক্তিকতা তুলে ধর।

ব্যবসায় উদ্যোগ সৃজনশীল প্রশ্নর উত্তর
ক. যে আইনে অংশীদারি ব্যবসায়ের গঠন, নিবন্ধন, পরিচালনা, নিয়ন্ত্রণ, বিলোপসাধনসহ অংশীদারি ব্যবসায়ের নিয়ন-নীতি বর্ণনা করা হয়েছে তাকে অংশীদারি আইন বলে।

খ. বৃহদায়তন শব্দের অর্থ বৃহৎ আকার। যে ব্যবসায় অধিক পুঁজি নিয়ে গঠিত হয়ে বৃহৎ পরিসরে উৎপাদন বা সেবা কার্যক্রম অব্যাহত রাখে সেটিকে বৃহদায়তন ব্যবসায় বলে। এ ব্যবসায়ে যন্ত্রের মাধ্যমে অধিক পণ্য উৎপাদন করা হয় এবং বৃহৎ বাজারে বিক্রি করা হয়। যেমন : স্টিল তৈরির ব্যবসায়ে অধিক মূলধন যেমন প্রয়োজন হয় তেমনি অধিক কর্মীবাহিনী নিয়োজিত থেকে অধিক পরিমাণ পণ্য তৈরি করে।

গ. উদ্দীপকের এমবিএ পড়–য়া ১০ জন বন্ধু মিলে অংশীদারি ব্যবসায় গড়ে তুলেছে।
একাধিক ব্যক্তি অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে যে ব্যবসায় গঠন করে তাকে অংশীদারি ব্যবসায় বলে। অংশীদারি ব্যবসায় একাধিক ব্যক্তির মধ্যে একটি চুক্তিবন্ধ সম্পর্ক যেখানে সদস্যরা মুনাফা অর্জন ও বণ্টন, পারস্পরিক প্রতিনিধিত্ব, বিশ্বাস ও আস্থার ভিত্তিতে কাজ করে।

উদ্দীপকের ১০ জন বন্ধু মিলে স্টুডেন্টস ভিসা সার্ভিস নামে অংশীদারি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠা করেছে। তারা শিক্ষার্থীদের বিদেশে পড়তে যেতে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা প্রদান করে থাকে। বন্ধুদের মধ্যে পারস্পরিক আস্থা ও বিশ্বাসের ওপর ভিত্তি করে প্রতিষ্ঠানটি গড়ে উঠেছে।

ফলে তাদের ব্যবসায় উত্তরোত্তর মুনাফা ও সুখ্যাতি অর্জন করতে পারছে। প্রতিষ্ঠানের অর্জিত মুনাফা সদস্যদের মধ্যে সাধারণত চুক্তির শর্ত অনুযায়ী বণ্টন করে অথবা চুক্তিতে উল্লেখ না থাকলে সমহারে বণ্টন করে। অর্থাৎ তাদের ব্যবসায়টি একটি অংশীদারি ব্যবসায় সংগঠন।

ঘ. উদ্দীপকে এমবিএ পড়–য়া ১০ জন বন্ধু আইনগত প্রমাণ হিসেবে অংশীদারি চুক্তিপত্র লিখিত ও নিবন্ধিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অংশীদারি সংগঠনের লিখিত চুক্তিকেই অংশীদারি চুক্তিনামা বা চুক্তিপত্র বলা হয়। ভবিষ্যৎ বিবাদের ও ভুল বোঝাবুঝির মীমাংসার জন্য চুক্তি লিখিত হওয়াই বাঞ্ছনীয়।

কেননা মৌখিক চুক্তি আইনের চোখে মূল্যহীন। উদ্দীপকের ১০ জন বন্ধুরা তাদের অংশীদারি ব্যবসায়ের ভবিষ্যৎ দিকনির্দেশনার জন্যই আইনগত প্রমাণস্বরূপ চুক্তিপত্র গঠন করতে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কারণ অংশীদারি চুক্তিপত্রে অংশীদারদের পারস্পরিক সম্পর্ক ও অন্যান্য বিষয়াবলির উল্লেখ থাকে।

অংশীদারদের মধ্যে কোনো বিষয়ে বিরোধ দেখা দিলে বা ব্যবসায় সংশ্লিষ্ট কোনো বিষয়ে সমস্যার জন্য চুক্তিপত্রে লিখিত নিয়ম অনুযায়ী যাবতীয় বিষয়ের সুষ্ঠু মীমাংসা করা সম্ভব হয়। তাছাড়া অংশীদারি ব্যবসায় শুধুমাত্র পারস্পরিক আস্থা ও বিশ্বাসের ওপর নির্ভর করে না। এজন্য প্রয়োজন হয় এ ব্যবসায়ের মূলভিত্তি চুক্তিপত্র।

উদ্দীপকের ১০ জন বন্ধু অর্থাৎ ব্যবসায়ের অংশীদারদের ভবিষ্যৎ স্বার্থ রক্ষার্থে এবং তাদের মধ্যে লাভ-লোকসান বণ্টন, পরিচালনা বা অন্য যেকোনো সম্ভাব্য বিষয়ে ভুল বোঝাবুঝির হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য চুক্তিপত্র লিখিত ও নিবন্ধিত হওয়াই বাঞ্ছনীয়। কারণ, তাদের মধ্যকার গঠনকালীন বন্ধুত্ব ও পারস্পরিক বিশ্বাস ভবিষ্যতে নাও থাকতে পারে।

তখন চুক্তিপত্র মীমাংসার প্রধান ভিত্তি হিসেবে কাজ করবে। সুতরাং বলা যায়, ১০ বন্ধুর আইনগত প্রমাণ হিসেবে অংশীদারি চুক্তিপত্র তৈরি করার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তা অত্যন্ত যুক্তিসংগত।

ব্যবসায় উদ্যোগ সৃজনশীল প্রশ্ন
সমমূলধনের ভিত্তিতে জুয়েল ও তার বন্ধু আজাদ মিলে একটি অংশীদারি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন। জুয়েল বলেন তিনি ব্যবসায় পরিচালনায় অংশ নিতে পারবেন না এবং সরবরাহকৃত মূলধন পর্যন্ত দায় গ্রহণ করবেন। সর্বসম্মতিক্রমে আজাদকে প্রতিষ্ঠান পরিচালনার দায়িত্ব দেয়া হয়। পরবর্তীতে একজন প্রভাবশালী দেনাদার ৫০,০০০ টাকা না দেয়ায় আজাদ আইনের আশ্রয় নিয়ে তা আদায় করতে সমর্থ হন।

ক. কোন ধরনের ব্যবসায় সংগঠনে মুনাফার ১৫% সঞ্চয় তহবিলে জমা রাখতে হয়?
খ. সমবায় সংগঠন গড়ে ওঠার কারণ লেখ।

গ. দায়ের ভিত্তিতে জুয়েল কোন ধরনের অংশীদার? ব্যাখ্যা কর।
ঘ. কী কারণে আজাদ আইনের আশ্রয় গ্রহণ করতে পেরেছেন বলে তুম মনে কর? তোমার উত্তর বিশ্লেষণ কর।

ব্যবসায় উদ্যোগ সৃজনশীল প্রশ্নর উত্তর
ক. সমবায় সংগঠনে মুনাফার ১৫% সঞ্চয় তহবিলে জমা রাখতে হয়।
খ. পুঁজিবাদী সমাজ ব্যবসায় সমাজে অর্থনৈতিক বৈষম্য দেখা দেয়।

স্বল্পবিত্ত ও মধ্যবিত্ত শ্রেণির পেশাজীবী ও ব্যবসায়ীরা আর্থিকভাবে সমস্যার সম্মুখীন হতে থাকে। পুঁজিবাদী সমাজের সৃষ্ট এ জাতীয় অর্থনৈতিক বৈষম্য ও দূরবস্থা থেকে মুক্তির প্রয়াসে সমবায় সংগঠন গড়ে ওঠে।

গ. দায়ের ভিত্তিতে জুয়েল ঘুমন্ত অংশীদার। বিনিয়োগ শর্তের ভিন্নতার ওপর ভিত্তি করে অংশীদারি ব্যবসায়ে নানা ধরনের অংশীদারের সমাবেশ ঘটে। এ ধরনের অংশীদারদের মধ্যে একটি হলো ঘুমন্ত অংশীদার। ঘুমন্ত অংশীদার বলতে বোঝায়, যে অংশীদার মুনাফার উদ্দেশ্যে ব্যবসায়ে কেবলমাত্র মূলধন বিনিয়োগ করে, অথচ ব্যবসায় পরিচালনায় অংশগ্রহণ করে না।

উদ্দীপকে জুয়েল ও তার বন্ধু আজাদ মিলে একটি অংশীদারি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান স্থাপন করেন। কিন্তু জুয়েল অধিকার থাকা সত্ত্বেও স্বক্রিয়ভাবে ব্যবসায় পরিচালনায় অংশগ্রহণে অপারগতা প্রকাশ করেন।

তিনি ব্যবসায়ে শুধু মূলধন বিনিয়োগ করবেন। এছাড়াও জুয়েল চুক্তি অনুযায়ী লাভে অংশগ্রহণ করবেন এবং সরবরাহকৃত মূলধন পর্যন্ত দায় গ্রহণ করবেন, যা ঘুমন্ত অংশীদারের বৈশিষ্ট্য। সুতরাং উদ্দীপকের শর্ত অনুযায়ী জুয়েল একজন ঘুমন্ত অংশীদার।

ঘ. অংশীদারি ব্যবসায়টি নিবন্ধিত হওয়ার কারণে আজাদ আইনের আশ্রয় গ্রহণ করতে পেরেছেন বলে আমি মনে করি।
অংশীদারি ব্যবসায়ের নিবন্ধন বলতে সরকার কর্তৃক নিয়োজিত নিবন্ধক অফিসে ব্যবসায়ের নাম তালিকাভুক্তকরণকে বোঝায়।

অনিবন্ধিত অংশীদারি ব্যবসায় থেকে নিবন্ধিত অংশীদারি ব্যবসায় বেশ কিছু অতিরিক্ত সুবিধা ভোগ করে। উদ্দীপকে জুয়েল ও তার বন্ধু আজাদ মিলে একটি নিবন্ধিত অংশীদারি ব্যবসায় গড়ে তোলেন।

তাদের অংশীদারি ব্যবসায়ের নিবন্ধনের কারণে ব্যবসায়ের একজন প্রভাবশালী দেনাদার ৫০,০০০ টাকা না দেয়ায় মি. আজাদ আইনের আশ্রয় গ্রহণ করেছেন। কিন্তু তাদের ব্যবসায়টি যদি নিবন্ধন করা না থাকত তাহলে তিনি দেনাদারের কাছ থেকে ১০০ টাকার বেশি কোনো পাওনা আদায়ের জন্য মামলা করতে পারতেন না।

এমনকি তৃতীয় কোনো পক্ষ যদি তাদের প্রতিষ্ঠান বা অংশীদারদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করত, শুধু অনিবন্ধিত হবার কারণে তারা বাদীপক্ষের বিরুদ্ধে পাল্টা পাওনা দাবি করতে পারত না।

কারণ অংশীদারি ব্যবসায় নিবন্ধিত হলেই কেবল তৃতীয় পক্ষের বিরুদ্ধে যেকোনো পরিমাণ অর্থ আদায়ের জন্য মামলা করা যায়। সুতরাং, আজাদের অংশীদারি ব্যবসায়টি নিবন্ধিত হওয়ার কারণে ৫০,০০০ টাকা পাওনা আদায়ের জন্য তিনি আইনের আশ্রয় নিয়ে তা আদায় করতে সমর্থ হন।

ANSWER SHEET

যুক্ত হোন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে এখানে ক্লিক করুন এবং আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন ফেইজবুক পেইজে এখানে ক্লিক করে।

এগুলো দেখুন

SSC ফ্রি PDF ব্যবসায় উদ্যোগ সমবায় সমিতির প্রকারভেদ MCQ

SSC ফ্রি PDF ব্যবসায় উদ্যোগ সমবায় সমিতির প্রকারভেদ MCQ

SSC ফ্রি PDF ব্যবসায় উদ্যোগ সমবায় সমিতির প্রকারভেদ MCQ সমবায় সমিতির প্রকারভেদ সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর …

Leave a Reply

Your email address will not be published.