SSC আত্মকর্মসংস্থানের অনুধাবনমূলক প্রশ্ন ও উত্তর (ফ্রি পিডিএফ)

SSC আত্মকর্মসংস্থানের অনুধাবনমূলক প্রশ্ন ও উত্তর (ফ্রি পিডিএফ)

অনুধাবনমূলক প্রশ্ন ও উত্তর
প্রশ্ন ॥ ১ ॥ আত্মকর্মসংস্থান একটি স্বাধীন পেশা’-ব্যাখ্যা কর।
উত্তর : আত্মকর্মসংস্থানের মাধ্যমে ব্যক্তি নিজের জমিতে বা বাড়িতে ব্যবসায় শুরু করতে পারে।

এতে করে তার আলাদা খরচ হয় না। বাড়তি চাপ সহ্য করতে হয় না। ব্যবসায়ে গোপনীয়তা রক্ষা হয়। অন্যের অধীনে চলতে হয় না। তাই বলা হয়, আত্মকর্মসংস্থান একটি স্বাধীন পেশা।

প্রশ্ন ॥ ২ ॥ বাংলাদেশে বেকার সমস্যা এত প্রকট কেন? ব্যাখ্যা কর।
উত্তর :বাংলাদেশ একটি জনবহুল দেশ। জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার বেড়েই চলেছে।

কিন্তু সে অনুপাতে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা সম্ভব হচ্ছে না। অর্থনৈতিক অনগ্রসরতা এবং চাহিদার তুলনায় সীমিত কর্মসংস্থানের কারণে বাংলাদেশে বেকার সমস্যা এত প্রকট।

প্রশ্ন ॥ ৩ ॥ সকল ব্যবসায় উদ্যোক্তাকে আত্মকর্মসংস্থানকারী বলা গেলেও সকল আত্মকর্মসংস্থানকারীকে ব্যবসায় উদ্যোক্তা বলা যায় না ব্যাখ্যা কর।
উত্তর : ব্যবসায় উদ্যোগের সাথে আত্মকর্মসংস্থানের সম্পর্ক খুব নিবিড়। আত্মকর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে একজন ব্যক্তি নিজের কর্মসংস্থানের চিন্তা করে কাজে হাত দেন।

একজন আত্মকর্মসংস্থানকারী ব্যক্তি তখনই একজন উদ্যোক্তায় পরিণত হবেন, যখন তিনি নিজের কর্মসংস্থানের পাশাপাশি সমাজের আরও কয়েকজনের কর্মসংস্থানের চিন্তা নিয়ে কাজ শুরু করেন, ঝুঁকি আছে জেনেও এগিয়ে যান এবং একটি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন। সেক্ষেত্রে সকল ব্যবসায় উদ্যোক্তাকে আত্মকর্মসংস্থানকারী বলা গেলেও সকল আত্মকর্মসংস্থানকারীকে ব্যবসায় উদ্যোক্তা বলা যায় না।

প্রশ্ন ॥ ৪ ॥ আত্মকর্মসংস্থানের ১০টি উপযুক্ত ও লাভজনক ক্ষেত্রের নাম লিখ।
উত্তর : আত্মকর্মসংস্থানের উপর্যুক্ত ও লাভজনক ক্ষেত্রের নাম নিচে দেয়া হলো :

১. টেইলারিং, ২. পোশাক প্রস্তুতকরণ, ৩. কাঠের আসবাবপত্র তৈরি, ৪. পাটের ম্যাট তৈরি, ৫. আলুর চিপস তৈরি, ৬. বাইসাইকেল মেরামত, ৭. মোবাইল সার্ভিস সেন্টার, ৮. গবাদি পশু ও হাঁস মুরগির খামার, ৯. প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং, ১০. ফটোস্ট্যাট ব্যবসায় ইত্যাদি।

প্রশ্ন ॥ ৫ ॥ ‘আত্মকর্মসংস্থানের মাধ্যমে আয় বৃদ্ধির সম্ভাবনা অসীম?’
উত্তর : আত্মকর্মসংস্থানের মাধ্যমে ব্যক্তি নিজেই নিজের কর্মসংস্থানের সৃষ্টি করে।

কঠোর পরিশ্রম ও সুযোগের সঠিক ব্যবহার করে মুনাফা অর্জন করা যায়। আত্মকর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে ব্যক্তি অনেক চিন্তাভাবনা করে পদক্ষেপ গ্রহণ করে। অন্যান্য পেশায় আয়ের সম্ভাবনা সীমিত। কিন্তু আত্মকর্মসংস্থান থেকে প্রাপ্ত আয় প্রথম দিকে সীমিত ও অনিশ্চিত হলেও পরবর্তীকালে এ পেশা থেকে আয় বৃদ্ধির সম্ভাবনা অসীম।

প্রশ্ন ॥ ৬ ॥ কর্মসংস্থানের প্রধান উৎস কী? বর্ণনা কর।
উত্তর : মানুষের জীবিকার্জনের জন্য কর্মসংস্থান অপরিহার্য। কর্মসংস্থানের প্রধান উৎস হলো সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি।

সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকাণ্ড সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করার জন্য নিম্ন, মধ্য ও উচ্চপর্যায়ে বহু কর্মীর প্রয়োজন হয়। তাছাড়া নিরাপত্তা, নিয়মিত আয়, প্রমোশন ও নিয়মিত সুযোগ-সুবিধা থাকায় চাকরি সকলের কাছে আকর্ষণীয়। দেশের কর্মসংস্থানের প্রধান উৎস হিসেবে তাই চাকরিকে সকলে বেছে নেয়। সুতরাং চাকরিই কর্মসংস্থানের প্রধান উৎস।

প্রশ্ন ॥ ৭ ॥ উন্নয়নশীল দেশে আত্মকর্মসংস্থান গুরুত্বপূর্ণ কেন?
উত্তর : আত্মকর্মসংস্থান ছাড়া কোনো দেশের সার্বিক উন্নয়ন সম্ভব নয়।

প্রত্যেক দেশেই সরকারি ও বেসরকারি খাতে কর্মসংস্থানের সুযোগ কম। আত্মকর্মসংস্থান দ্বারাই ক্রমবর্ধমান বেকার সমস্যাকে নিরসন করা যায়। যেখানে সরকারি ও বেসরকারি খাতে কর্মসংস্থানের সুযোগ কম, সেখানে বাংলাদেশের মতো উন্নয়নশীল দেশের ক্ষেত্রে আত্মকর্মসংস্থানের গুরুত্ব অপরিসীম।

প্রশ্ন ॥ ৮ ॥ ‘প্রশিক্ষণ অপচয় ও দুর্ঘটনা হ্রাস করে।’ ব্যাখ্যা কর।
উত্তর : প্রশিক্ষিত কর্মীগণ অধিকতর দক্ষতা ও মিতব্যয়িতার সাথে কার্য সম্পাদন করতে পারে।

এতে প্রতিষ্ঠানের কার্য সম্পাদনের ক্ষেত্রে অপচয় হ্রাস পায়। প্রশিক্ষণ কর্মীদের নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা গ্রহণের বিবিধ কলাকৌশল সম্পর্কে জ্ঞান দান করে। ফলে কারখানার যন্ত্রপাতি ব্যবহারসহ অন্যান্য দুর্ঘটনা এড়ানোও সহজ হয়। কর্মীর দক্ষতা ও যোগ্যতা বৃদ্ধির মাধ্যমে সুষ্ঠুভাবে ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের কার্য নির্বাহের জন্য প্রশিক্ষণের প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম।

প্রশ্ন ॥ ৯ ॥ বেকার কাকে বলা হয়? ব্যাখ্যা কর।
উত্তর : চাকরির অভাবই হলো বেকারত্ব।

যিনি বেকারত্ব সমস্যার শিকার তাকেই বেকার বলা হয়। বেকার হলো একজন ব্যক্তি যার কর্মসংস্থানের কোনো উপায় নেই। বর্তমানে বাংলাদেশে ৩ কোটির বেশি যুবক-যুবতী বেকার। আত্মকর্মসংস্থানের মাধ্যমে এ সকল বেকার যুবক-যুবতীর বেকারত্বের অবসান ঘটানো যায়।

প্রশ্ন ॥ ১০ ॥ উদ্যোক্তাকে ঝুঁকি গ্রহণ করতে হয় কেন?
উত্তর : সকল উদ্যোগে ঝুঁকি ও অনিশ্চয়তা বিদ্যমান। ঝুঁকি গ্রহণ ছাড়া নতুন কিছু সৃষ্টি করা যায় না।

ব্যবসায় উদ্যোগের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত বিভিন্ন ঝুঁকি থাকে। এসব ঝুঁকি গ্রহণ এবং তা ন্যূনতমকরণের মাধ্যমে একজন উদ্যোক্তা তার উদ্যোগকে সফল করতে পারেন। এজন্যই উদ্যোক্তাকে ঝুঁকি গ্রহণ করতে হয়।

প্রশ্ন ॥ ১১ ॥ মৃৎশিল্পের ধারণা দাও।
উত্তর : শিল্প হলো উৎপাদনের বাহন। মৃৎ অর্থ মাটি। মাটি দ্বারা বিভিন্ন দ্রব্য তৈরির প্রক্রিয়াকে মৃৎশিল্প বলা হয়।

মৃৎশিল্পে থালা-বাসন, পুতুল, খেলনা প্রভৃতি উৎপাদিত হয়। মাটির ওপর নির্ভর করেই মূলত এ শিল্প উৎপাদন কার্য অব্যাহত রাখে বলে এটিকে মৃৎশিল্প বলা হয়। এদেশের মৃৎশিল্প ঐতিহ্যগতভাবেই রয়েছে।

প্রশ্ন ॥ ১২ ॥ আত্মকর্মসংস্থানমূলক কর্মকাণ্ডের জন্য কোন ধরনের প্রশিক্ষণের প্রয়োজন?
উত্তর : আত্মকর্মসংস্থানমূলক কর্মকাণ্ডের জন্য ব্যবসায় অপরিকল্পনা ও রক্ষণাবেক্ষণ তথা ব্যবস্থাপনাবিষয়ক প্রশিক্ষণ প্রয়োজন।

সাধারণত প্রশিক্ষণ প্রয়োজন। সাধারণত প্রশিক্ষণ বলতে কোনো পেশা বা ব্যবসায় সম্পর্কে বিশেষ জ্ঞান ও দক্ষতা অর্জনের জন্য হাতেকলমে শিক্ষাকে বোঝায়। আত্মকর্মসংস্থানের জন্য সাধারণত কোনো ব্যক্তি তার উদ্দিষ্ট কাক্সিক্ষত ব্যবসায় বা পেশা বিষয়ে জ্ঞান, দক্ষতা ও কৌশল অর্জন করে যে পেশা বা ব্যবসায় প্রতিষ্ঠা করতে ও তা সুদক্ষভাবে পরিচালনা করতে সক্ষম হয়।

প্রশ্ন ॥ ১৩ ॥ ব্যবসায় সফলতা অর্জনের একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো সঠিক ব্যবসায় পরিকল্পনা প্রণয়ন ব্যাখ্যা কর।
উত্তর : ব্যবসায় সফলতা অর্জনের আর একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো সঠিক ব্যবসায় পরিকল্পনা প্রণয়ন।

ব্যবসায়ে হাত দেওয়ার আগেই ব্যবসার কাজ কখন এবং কীভাবে করা হবে তা অগ্রিম চিন্তা করে ঠিক করাই হচ্ছে পরিকল্পনা। ব্যবসায় পরিচালনার ক্ষেত্রে পরিকল্পনা হচ্ছে  দিকনির্দেশনা দলিল। পরিকল্পনা প্রণয়ন যত বেশি সমৃদ্ধ হবে ব্যবসায়ে সফল হওয়ার নিশ্চয়তাও তত বেশি হবে।

প্রশ্ন ॥ ১৪ ॥ ব্যবসায় ঝুঁকি মোকাবিলার উপায় ব্যাখ্যা কর।
উত্তর : ব্যবসায়ের সাফল্য লাভের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ পূর্বশর্ত হলো ব্যবসায় ঝুঁকি মোকাবিলার উপায় নির্ধারণ করা।

ব্যবসায় সংক্রান্ত ঝুঁকি আগেই নিরূপণ করে তার মোকাবিলা করার কৌশল স্থির করে রাখলে অনিশ্চয়তাজনিত ক্ষতির হাত থেকে ব্যবসাকে রক্ষা করা যায়। কাজেই উপযুক্ত পদ্ধতির মাধ্যমে ব্যবসায় ঝুঁকি নিরূপণ ও তা মোকাবিলার উপায় নির্ধারণ ব্যবসায় সাফল্য লাভের অন্যতম শর্ত।

প্রশ্ন ॥ ১৫ ॥ বাংলাদেশ ব্যবস্থাপনা ইনস্টিটিউট একটি প্রশিক্ষণ প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান ব্যাখ্যা কর।
উত্তর : বাংলাদেশ ব্যবস্থাপনা ইনস্টিটিউট শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীন একটি স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান।

নির্দিষ্ট ফি’র বিনিময়ে এটি আত্মকর্মসংস্থান ও উদ্যোগ উন্নয়নের বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকে। প্রধান প্রধান কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে ক্ষুদ্র শিল্প স্থাপন প্রক্রিয়া ও ব্যবস্থাপনা, নতুন শিল্প প্রতিষ্ঠাকরণ, মহিলা উদ্যোক্তা উন্নয়ন প্রভৃতি। সুতরাং এটি একটি প্রশিক্ষণ প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান।

প্রশ্ন ॥ ১৬ ॥ যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের কার্যক্রম ব্যাখ্যা কর।
উত্তর : যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় কর্তৃক পরিচালিত প্রশিক্ষণ কেন্দ্র। দেশের প্রতিটি থানায় এর কেন্দ্র রয়েছে।

এসব কেন্দ্রের মাধ্যমে বেকার যুবক-যুবতীদের বিভিন্ন পেশায় প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়, যেমন : হাঁস-মুরগির খামার তৈরি, মৎস্য চাষ, সবজি বাগান, নার্সারি করা, সেলাইয়ের কাজ, কুটির শিল্পের কাজ, কম্পিউটার চালনা প্রভৃতি। এসব বিষয়ে প্রশিক্ষণ নিয়ে প্রশিক্ষণার্থীরা আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ পায়।

প্রশ্ন ॥ ১৭ ॥ আত্মকর্মসংস্থানের ক্ষেত্র নির্বাচনে সুষ্ঠু ব্যবস্থায় পরিকল্পনা প্রণয়নের গুরুত্ব ব্যাখ্যা কর।
উত্তর : ব্যবসায় সফলতা অর্জনের একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো সুষ্ঠু ব্যবসায় পরিকল্পনা প্রণয়ন।

ব্যবসায়ে হাত দেওয়ার পূর্বেই ব্যবসার কাজ কখন এবং কীভাবে করা হবে তা অগ্রিম চিন্তা করে ঠিক করাই হচ্ছে পরিকল্পনা। ব্যবসায় পরিচালনার ক্ষেত্রে পরিকল্পনা হচ্ছে দিকনির্দেশনা দলিল। পরিকল্পনা প্রণয়ন যত বেশি সমৃদ্ধ হবে ব্যবসায়ে সফল হওয়ার নিশ্চয়তাও তত বেশি হবে।

ANSWER SHEET

যুক্ত হোন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে এখানে ক্লিক করুন এবং আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন ফেইজবুক পেইজে এখানে ক্লিক করে।

এগুলো দেখুন

SSC ফ্রি PDF ব্যবসায় উদ্যোগ: MCQ উত্তরসহ

SSC ফ্রি PDF ব্যবসায় উদ্যোগ: MCQ উত্তরসহ

SSC ফ্রি PDF ব্যবসায় উদ্যোগ: MCQ উত্তরসহ বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর ১. রাষ্ট্রীয় ব্যবসায় যে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.